Uncategorized

“আমাকে পৃথিবীর ধনভাণ্ডারের চাবি সমূহ প্রদান করা হয়েছে” হাদিসের ব্যাখ্যা

প্রশ্ন: সহিহ বুখারির হাদিসে রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, “আমাকে পৃথিবীর ধনভাণ্ডারের চাবি সমূহ প্রদান করা হয়েছে।” এ হাদিসের ব্যাখ্যা কি?
উত্তর:
আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,
بُعِثْتُ بِجَوَامِعِ الْكَلِمِ، وَنُصِرْتُ بِالرُّعْبِ، فَبَيْنَا أَنَا نَائِمٌ أُتِيتُ بِمَفَاتِيحِ خَزَائِنِ الأَرْضِ فَوُضِعَتْ فِي يَدِي
قَالَ أَبُو هُرَيْرَةَ: وَقَدْ ذَهَبَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَأَنْتُمْ تَنْتَثِلُونَهَا
“অল্প শব্দে ব্যাপক অর্থবোধক বাক্য বলার শক্তিসহ আমাকে পাঠানো হয়েছে এবং শত্রুর মনে ভীতি সঞ্চারের মাধ্যমে আমাকে সাহায্য করা হয়েছে। একবার আমি নিদ্রায় ছিলাম, তখন পৃথিবীর ধনভাণ্ডার সমূহের চাবি আমার হাতে দেয়া হয়েছে।”
আবু হুরায়রাহ্ রা. বলেন, “আল্লাহর রাসূল (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তো চলে গেছেন আর তোমরা ওগুলো বাহির করছ।”
[বুখারী পর্ব ৫৬ : /১২২ হাঃ ২৯৭৭, মুসলিম ৫/৫ হাঃ ৫২৩]
অন্য একটি হাদিসে এসেছে,রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,
«إنِّي فَرَطٌ لَكُمْ وَأَنَا شَهِيدٌ عَلَيْكُمْ وَإِنِّي وَاللهِ لأَنْظُرُ إِلَى حَوْضِي الآنَ، وَإِنِّي أُعْطِيتُ مَفَاتِيحَ خَزَائِنِ الأَرْضِ، أَوْ مَفَاتِيحَ الأَرْضِ، وَإِنِّي وَاللهِ مَا أَخَافُ عَلَيْكُمْ أَنْ تُشْرِكُوا بَعْدِي، وَلَكِنْ أَخَافُ عَلَيْكُمْ أَنْ تَنَافَسُوا فِيهَا
‘‘আমি তোমাদের অগ্রদূত এবং তোমাদের জন্য সাক্ষী। আল্লাহর শপথ, আমি এই মুহূর্তে আমার হাউজ [হাওজে কাওসার] দেখছি। আমাকে পৃথিবীর ধনভাণ্ডারের চাবি গুচ্ছ প্রদান করা হয়েছে। আর আমি তোমাদের ব্যাপারে এ জন্য শঙ্কিত নই যে, তোমরা আমার [তিরোধানের] পর শির্ক করবে; বরং এ আশংকা বোধ করছি যে, তোমরা পার্থিব ধন-সম্পদের ব্যাপারে তোমরা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় লিপ্ত হবে।’’
[রিয়াদুস সালেহীন) ১৮/ বিবিধ চিত্তকর্ষী হাদিসসমূহ
পরিচ্ছেদঃ ৩৭০ : দাজ্জাল ও কিয়ামতের নিদর্শনাবলী সম্পর্কে]
🔷 হাদিসের ব্যাখ্যা:
🔸 ইবনে হাজার আসকালানি রহ. রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর বাণী:
أُوتِيتُ مَفَاتِيح خَزَائِنِ الأَرْضِ
“আমাকে পৃথিবীর ধনভাণ্ডারের চাবি সমূহ প্রদান করা হয়েছে” কথাটির ব্যাখ্যা প্রসঙ্গে বলেন, এ কথা দ্বারা উদ্দেশ্য হল, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম দুনিয়া থেকে বিদায় নেয়ার পর তার উম্মত অনেক যুদ্ধজয় করবে।
কোন কোন মুহাদ্দিস বলেছেন, এ দ্বারা উদ্দেশ্য হল, বিভিন্ন খনিজ সম্পদ। [সহিহ বুখারির ব্যাখ্যা গ্রন্থ ফাতহুল বারি ৬/১২৮০]
🔸 নওবি বলেন, এ কথা দ্বারা উদ্দেশ্য হল, মুসলিমদের জন্য পার্থিব সম্পদের দরজা উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। এর মধ্যে যুদ্ধ লব্ধ সম্পদ, ধনভাণ্ডার ইত্যাদি সবই শামিল।” [ফাতহুল বারি ১৩/২৪৮]

والله اعلم

উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *