Uncategorized

ইবলিশ

ইবলিশ কি ফেরেশতা ছিল?

===================

আমরা ওয়াজ মাহফিলে অনেক বক্তাদের কাছ থেকে শুনে থাকি, “ইবলিশ ফেরেস্তা (মালাইকা) ছিলেন। অথবা, ফেরেস্তাদের (মালাইকা) সর্দার ছিলেন। সে অনেক ইবাদত বন্দিগি করত। আদম আলাইহে ওয়াসাল্লাম কে সেজদা দেয়নি তাই, আল্লাহ তাকে শয়তান/ইবলিশ বানিয়ে দিলেন।প্রশ্ন হলো, এইকথা কি গ্রহনযোগ্য? ইবলিশ কি ফেরেস্তা (মালাইকা) ছিল? আসুন দেখি আল্লাহ সুবাহানুতায়ালা ইবলিশকে কি পরিচয় করে দিচ্ছেন।মহান আল্লাহ বলেছেনঃﻭَﺇِﺫْ ﻗُﻠْﻨَﺎ ﻟِﻠْﻤَﻠَﺎﺋِﻜَﺔِ ﺍﺳْﺠُﺪُﻭﺍ ﻟِﺂﺩَﻡَ ﻓَﺴَﺠَﺪُﻭﺍ ﺇِﻟَّﺎ ﺇِﺑْﻠِﻴﺲَ ﻛَﺎﻥَ ﻣِﻦَ ﺍﻟْﺠِﻦِّ ﻓَﻔَﺴَﻖَ ﻋَﻦْ ﺃَﻣْﺮِ ﺭَﺑِّﻪِ ﺃَﻓَﺘَﺘَّﺨِﺬُﻭﻧَﻪُ ﻭَﺫُﺭِّﻳَّﺘَﻪُ ﺃَﻭْﻟِﻴَﺎﺀ ﻣِﻦ ﺩُﻭﻧِﻲ ﻭَﻫُﻢْ ﻟَﻜُﻢْ ﻋَﺪُﻭٌّ ﺑِﺌْﺲَ ﻟِﻠﻈَّﺎﻟِﻤِﻴﻦَ ﺑَﺪَﻟًﺎযখন আমি ফেরেশতাদেরকে বললামঃ আদমকে সেজদা কর, তখন সবাই সেজদা করল ইবলীস ব্যতীত।” সে ছিল জিনদের একজন।” সে তার পালনকর্তার আদেশ অমান্য করল। অতএব তোমরা কি আমার পরিবর্তে তাকে এবং তার বংশধরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করছ? অথচ তারা তোমাদের শত্রু। এটা জালেমদের জন্যে খুবই নিকৃষ্ট বদল।[ সুরা কা’হফ ১৮:৫০ ]এই আয়াতে আল্লাহ তায়ালা আমাদের জানিয়ে দিলেন, “ইবলিশ একজন জিন”।এছাড়াও সূরা আরাফে আল্লাহ বলেছেনঃﻗَﺎﻝَ ﻣَﺎ ﻣَﻨَﻌَﻚَ ﺃَﻻَّ ﺗَﺴْﺠُﺪَ ﺇِﺫْ ﺃَﻣَﺮْﺗُﻚَ ﻗَﺎﻝَ ﺃَﻧَﺎْ ﺧَﻴْﺮٌ ﻣِّﻨْﻪُ ﺧَﻠَﻘْﺘَﻨِﻲ ﻣِﻦ ﻧَّﺎﺭٍ ﻭَﺧَﻠَﻘْﺘَﻪُ ﻣِﻦ ﻃِﻴﻦٍআল্লাহ বললেনঃ আমি যখন নির্দেশ দিয়েছি, তখন তোকে কিসে সেজদা করতে বারণ করল? সে বললঃ আমি তার চাইতে শ্রেষ্ট।” আপনি আমাকে(ইবলিশ)’ আগুন’ দ্বারা সৃষ্টি করেছেন” এবং তাকে সৃষ্টি করেছেন মাটির দ্বারা।[ সুরা আরাফ ৭:১২]এই আয়াতে আরো স্পষ্ট হলো ইবলিশ ছিল আগুনের তৈরী। এবং জিনরা আগুনের তৈরী।সুতরাং আমরা জানলাম ইবলিশ ফেরেস্তা(মালাইকা) ছিল না। ইবলিশ ছিল জীন জাতির।যে বা যারা কুরআনে এমন সুস্পষ্ট আয়াত থাকার পরেও মিথ্যা বলছেন, আল্লাহ তাদের হেদায়েত করুন। আসুন কোরআন মজিদ বুজে পড়ি। কোরআন হাদিস পড়ি। আমল করি। মিথ্যা কাহিনী পরিহার করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *