Uncategorized

বাবা-মার প্রতি আমাদের দায়িত্ব কতটুকু?

প্রশ্ন: বাবা-মার প্রতি আমাদের দায়িত্ব কতটুকু? “মায়ের এক ফোটা দুধের ধার শোধ করা যাবে না।” কথাটা কি সত্যি?
উত্তর:
নিঃসন্দেহে ইসলাম পিতা মাতার প্রতি কৃতজ্ঞতা আদায়, তাদের সন্তুষ্টি অর্জন, তাদের সাথে সদাচারণ ইত্যাদি বিষয়ে যে পরিমাণ গুরুত্ব দিয়েছে তা এককথায় অতুলনীয়। বিশেষ করে পিতার তুলনায় মায়ের তিনগুণ মর্যাদা বেশি দেওয়া হয়েছে। কারণ গর্ভে ধারণ, ভূমিষ্ঠ করণ এবং দুগ্ধদান এই তিনটি ক্ষেত্রে পিতার থেকে মা এগিয়ে রয়েছে। এই কাজগুলো একমাত্র মা’ র দ্বারাই সম্ভব। তাই সদাচরণ ও সদ্ব্যবহারের ক্ষেত্রে ইসলামে পিতা থেকে মাকে তিনগুণ বেশি অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে।
বাস্তবেই সন্তান যদি তার মায়ের হক আদায়ের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে তারপরেও যথাযথভাবে তা আদায় করা সম্ভব নয়। এই কথাটিকে গুরুত্বের সাথে বোঝানোর জন্য বিভিন্ন কবি, সাহিত্যিক, গায়ক ও গীতিকার নানাভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছে। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি প্রসিদ্ধ মায়ের গানের কলি হল:
“মায়ের এক ধার দুধের দাম
কাটিয়া গায়ের চাম
পাপোশ বানাইলেও ঋণের শোধ হবে না।
এমন দরদী ভবে কেউ হবে না, আমার মা।”
উপরোক্ত কথাটাও একই অর্থবোধক।
মোটকথা, এ কথাটির মর্মার্থ সঠিক। তাই আমাদের কর্তব্য, পিতা-মাতার প্রতি-(বিশেষ করে মা’র প্রতি) কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা ও যাথাযোগ্য সম্মান প্রদর্শন করা, তাদের সেবা ও আনুগত্য করা, তাদের সাথে নরম ভাষায় কথা বলা, চোখ রাঙ্গিয়ে ধমকের স্বরে কথা না বলা, তাদের স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, খাবার-দাবার, পোশাকআশাক ইত্যাদির প্রতি যত্ন নেয়া, তাদের প্রতি দয়াসূলভ আচরণ করা, তাদের জন্য আল্লাহর নিকট দুআ করা ইত্যাদি।
এভাবে হক পরিপূর্ণ আদায় করা সম্ভব না হলেও যথাসাধ্য চেষ্টা করা প্রত্যেক সন্তানের জন্য আবশ্যক।
আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে পিতামাতার-বিশেষ করে মা’র প্রতি আমাদের অপরিহার্য দায়িত্ব পালনের তাওফিক দান করুন। আমীন।

আল্লাহু আলাম।

উত্তর প্রদান:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
জুবাইল দাওয়া সেন্টার, সৌদি আরব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *