Uncategorized

সেজদায় কুরআনের দুআ সম্বলিত আয়াত সমূহ পাঠ করার বিধান


••••••••••••••••••••
সিজদা ও রুকু অবস্থায় কুরআন তিলাওয়াত করা জায়েজ নয়। কেননা হাদিসে এ ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা এসেছে। যেমন:
◍ আলি রা. থেকে বর্ণিত আছে। তিনি বলেন,
نَهَانِي رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنْ أَقْرَأَ رَاكِعًا أَوْ سَاجِدًا
“রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাকে নিষেধ করেছেন, রুকু এবং সিজদা অবস্থায় কুরআন পাঠ করতে।” (নাসাঈ, হা/১১১৯-সহীহ)
◍ ইবনে আব্বাস রা. হতে বর্ণিত হয়েছে, তিনি বলেছেন,
أَلَا إِنِّي نُهِيتُ أَنْ أَقْرَأَ رَاكِعًا أَوْ سَاجِدًا، فَأَمَّا الرُّكُوعُ فَعَظِّمُوا فِيهِ الرَّبَّ، وَأَمَّا السُّجُودُ فَاجْتَهِدُوا فِي الدُّعَاءِ قَمِنٌ أَنْ يُسْتَجَابَ لَكُمْ
“তোমরা শুনে রেখ! আমাকে নিষেধ করা হয়েছে রুকু অবস্থায় কিরাত থেকে এবং সেজদা অবস্থায়। রুকুতে তোমরা তোমাদের প্রতিপালকের শ্রেষ্ঠত্ব ও মর্যাদা বর্ণনা কর। আর সিজদায় তোমরা দোয়া করতে চেষ্টা কর। তোমাদের জন্য দুআ কবুল হওয়ার উপযুক্ত সময় এটাই।” (সুনানে নাসাঈ হ/১১২০-সহীহ)
উপরোক্ত হাদিসগুলো থেকে জানা যায় যে, রুকু-সেজদা অবস্থায় কুরআন তিলাওয়াত করা জায়েজ নাই। বরং অধিক পরিমাণে রুকুর তাসবিহগুলো পাঠ করতে হবে। আর সেজদাহ অবস্থায় সেজদার তাসবিহগুলো পাঠ করার পাশাপাশি অধিক পরিমাণে দুআ করার চেষ্টা করতে হবে। কেননা এ অবস্থায় দুআ কবুলের সম্ভাবনা বেশি। কিন্তু সেজদা অবস্থায় কুরআন তিলাওয়াত করা নিষেধ হলেও দুআ হিসেবে কুরআনের দুআ সম্বলিত আয়াতগুলো পড়া এই নিষেধাজ্ঞার অন্তর্ভুক্ত নয়।
মোটকথা, রুকু ও সেজদা অবস্থায় কুরআনের দুআ সম্বলিত আয়াত সমূহ দুআ হিসেবে পড়তে কোনও আপত্তি নাই। কিন্তু নফল ইবাদতের নিয়তে তিলাওয়াত হিসেবে পড়া জায়েজ নয়।
◈◈ সৌদি আরবের স্থায়ী ফতোয়া কমিটিকে প্রশ্ন করা হয়:
আমরা শুনেছি যে, সেজদায় কুরআন তেলাওয়াত করা জায়েজ নেই। কিন্তু কুরআনের কিছু দুয়া সম্বলিত আয়াত রয়েছে যেমন:
رَبَّنَا لَا تُزِغْ قُلُوبَنَا بَعْدَ إِذْ هَدَيْتَنَا
”আমাদের প্রতিপালক, আমাদের অন্তরকে বিপথগামী করো না আমাদের হেদায়েত করার পরে।” (সূরা আলে ইমরান: ৮)। সেজদা অবস্থায় কুরআনে বর্ণিত এ জাতীয় দুআগুলো পাঠের বিধান কি?
➧ তারা জবাবে বলেন,
لا بأس بذلك إذا أتى بها على وجه الدعاء لا على وجه التلاوة للقرآن
“এতে কোনও অসুবিধা নাই যদি দুয়া হিসেবে পাঠ করে; কুরআন তেলাওয়াত হিসেবে নয়।” [ফাতাওয়া লাজনাহ দায়েমাহ ৬/৪৪৩] আল্লাহু আলাম।
••••••••লেখক••••••••••••
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *