-50%Sold out

প্রত্যেক মুসলমানদের যে সব বিষয় জানা ওয়াজিব

৳ 15

মুহাম্মাদ বিন সুলায়মান
আত-তামীমী

Out of stock

Description

আলাউদ্দিন ইমামী : ১। শিরক, তাওহীদ, ঈমান, ইসলাম, তাগুত, কুফর, নেফাক, জুলুম, পাকপবিত্রতা, নামাজ, রোজা, হজ্জ, জাকাত, ফরজ, ওয়াজিব, হালাল, হারাম, জায়েজ, নাজায়েজ, পর্দা পুশিদাসহ পরিবার, প্রতিষ্ঠান, সমাজ, রাষ্ট্র ও দেশ এবং নিজেদের (দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট ধর্মীয়) ও রাজনৈতিক সকল বিষয়ে ইসলাম কি বলে এবং ইসলামী বিধি বিধান কি তা জানা এবং মানা সকল মুসলমানের জন্য ফরজে আইন। এ ব্যাপারে ঈমান আমলে গোলমাল থাকলে সব ইবাদত বরবাদ। এই কারণে আল্লাহ্র নবী (সা:) বলেছেন, প্রত্যেক মুসলমান নর নারীর জন্য জ্ঞান অর্জন করা ফরজ। আল-হাদীস।

২। কোরআনী জ্ঞান অর্জন ও চরিত্র গঠন এবং নিজের বাচ্চাদেরকে সে জ্ঞান ও চরিত্রে গড়ে তোলা প্রতিটি মুসলমানের উপর ফরজ। কোরআনী জ্ঞান ও চরিত্রের অভাবের কারণেই দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের বিকাশ। যাদের কোরআনী জ্ঞান ও চরিত্র নেই তারাই সকল অপকর্মের হোতা। তাদের ব্যাপারে আল্লাহ্ বলেন, যখন তাদেরকে বলা হয় তোমরা সমাজে অপকর্ম ও ফিতনা ফাসাদ করিও না, তখন তারা বলে আমরা কল্যাণ ও মঙ্গলের জন্যই সব করি। ছুরায়ে বাক্বারা।

৩। ধর্মীয়, রাজনৈতিক, ছোট, বড়, দুনিয়া আখিরাতের সব কাজ আল্লাহ্র কথা মত করাই এবাদত। আল্লাহ আমাদেরকে সৃষ্টি করেছেন তাঁর এবাদত করার জন্য। আল্লাহর এবাদত করার অপর নাম আল্লাহ্র গোলামী। আল্লাহ্র গোলামী গ্রহণ করাই ঈমানের মূল কথা। ইহাতেই দুনিয়া ও আখিরাতের সুখ-শান্তি। আল্লাহ বলেন, আজ তোমাদের জন্য তোমাদের দ্বীনকে পরিপূর্ণ করে দিয়েছি এবং ইসলামকে তোমাদের জীবন বিধান হিসেবে অনুমোদন দিলাম। প্রতিটি কাজের জন্য ইসলামকে জীবন বিধান হিসেবে গ্রহণ করাই এবাদতের মূল কথা। আল্লাহ বলেন, তোমরা ইসলামকে পুরোপুরি মেনে চল। যারা নামাজের ইসলামী বিধান মানে কিন্তু পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় বিষয়ে ইসলামী বিধান মানে না তারা মুসলমান হতে পারে না।

৪। আল্লাহ ও রাসূল (সা:) যা করতে বলেছেন, তা না করা গুণাহ। আল্লাহ ও রাসূল (সা:) যা করতে নিষেধ করেছেন, তা করা গুণাহ। গুণাহ থেকে নিজে বাঁচা এবং অন্যকে বাঁচানো এবং দেশ, ধর্ম ও মানুষকে রক্ষা করার জন্যে কাজ করার নাম জেহাদ। এই জেহাদ কেয়ামত পর্যন্ত জারি থাকবে। আল্লাহ্ বলেন, রাসূল (সা:) তোমাদেরকে যা দিয়েছেন তা ধারণ কর এবং যা নিষেধ করেছেন তা বর্জন কর। আল কোরআন

৫। সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ জিহাদ নয়। ইসলাম ও জেহাদের ব্যাপারে বিভ্রান্ত করার জন্যই ইসলামের শত্রু ইহুদী, মুশরিকরা সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টি করেছে। আর সন্ত্রাসী মার্কা মুসলমানদের অপকর্মকে ইসলাম ধর্মের বদনাম করার জন্য ফলাও করে প্রচারণা চালায়। অথচ ইসলামে সাম্প্রদায়িকতা, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ সম্পূর্ণ হারাম। অন্যায়ভাবে মানুষের ক্ষতি করা, মানুষ খুন করা, জঙ্গীবাদ অন্যায় এবং অন্যায়কারীকে দমন করার জন্য যা করা হয় তাই জিহাদ। এই জন্যই আল্লাহর নবী বলেছেন, জেহাদ কেয়ামত পর্যন্ত জারি থাকবে। আল-হাদীস

৬। যে ব্যক্তি তার মা, বোন, স্ত্রী, মেয়েকে বে পর্দা চলতে দেয় সে দয়ুছ। তার ঠিকানা জাহান্নাম। কোন নারী জাহান্নামে গেলে সে বাপ, ভাই, স্বামী অথবা বড় ছেলে, এ চারজনের কোন একজনকে সাথে নিয়ে যাবে। আল-হাদীস। নাউজুবিল্লাহ। তাই আল্লাহ্ বলেন, তোমরা নিজেরা জাহান্নাম থেকে বাঁচ, তোমাদের পরিবারকেও জাহান্নাম থেকে বাঁচাও। আল কোরআন।

৭। যে নারী পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়বে, রমজান মাসে রোজা রাখবে, স্বামীর জায়েজ কথা মেনে চলবে, নিজের পর্দা পুশিদা রক্ষা করবে, সে যে দরজা দিয়ে ইচ্ছা জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে। আল-হাদীস। শয়তানের শিষ্য ইহুদী, মুশরিক ও মুনাফেকরা আমাদের ছেলে মেয়েগুলোকে বেপর্দা ও চরিত্রহীন করে জাহান্নামী বানাতে চায়। তাই দেদশী বিদেশী চ্যানেলে অশ্লীলতার সয়লাভ। এসব পাপ থেকে বাচতে হবে।

৮। যে অন্তর থেকে আল্লাহর গোলামী করতে চায়, আল্লাহ্ তাকে অন্যের গোলামী থেকে বাঁচায়। আল্লাহর হুকুম ও বিধান বাদ দিয়ে অন্যের হুকুম ও বিধান মত চলা অন্যের গোলামী। অন্যের গোলামী করে আল্লাহর বান্দা হওয়া যায় না। যারা অন্যের গোলামী করে তাদের নামাজ রোজা এবাদত বন্দেগীর কোন মূল্য নেই। তাই আল্লাহ বলেন, তোমরা আল্লাহর গোলামী কর এবং তাগুতকে বর্জন কর। আল-কোরআন। যারা আল্লাহর বিধান বাদ দিয়ে নিজের আইন ও বিধানমত মানুষকে চালাতে চায় তারাই তাগুত।

৯। যে আল্লাহর কাছে, আল্লাহর জন্য কাঁদে আল্লাহ তাঁকে অন্যের কাছে কাঁদাবেন না। আল্লাহ্ তাঁকে রোজ কেয়ামতের দিন তাঁর আরশের নিচে ছায়া দিবেন। আল্লাহ্র নবী বলেন, যার চোখ দিয়ে আল্লাহ্র জন্য পানি পড়বে আল্লাহ্ তাকে কেয়ামতের দিন আল্লাহ্র আরশের নিচে ছায়া দিবেন। আল-কোরআন।

১০। যে আখিরাতের জন্য চিন্তা করবে, আখিরাতের জন্য কাজ করবে, আল্লাহর তাঁর দুনিয়ার কাজ করে দেবেন এবং দুনিয়ার জন্য তাকে অস্থির করবেন না।

১১। যে সুখের সময় আল্লাহ্র কাছে কাঁদে, আল্লাহ্ তাকে দুঃখে ফেলে কাঁদায় না। যে সুখের সময় আল্লাহকে ভুলে যায়, আল্লাহ্র নাফরমানী করে, আল্লাহ দুঃখের সময় তাকে সাহায্য না করলে কে তাকে রক্ষা করবে?

১২। যে আল্লাহর রাগ-গোস্বা এবং আখিরাতের বিপদ থেকে বাঁচার জন্য চিন্তা করবে, আল্লাহ তাঁকে দুনিয়ার বিপদ মুছিবত থেকে বাঁচানোর চিন্তা করবেন।

১৩। যে সকল অন্যায় ও গুণাহ থেকে মুক্ত, আল্লাহ তাকে বিপদ দিয়ে পরীক্ষা করবেন। যে গুণাহ করবে আল্লাহ তাকে সংশোধনের জন্য বিপদ দিবেন।

১৪। যে রকম কষ্টে অথবা বিপদে পড়বে, তাকে ভাবতে হবে আল্লাহ আমাকে পরীক্ষা করছেন অথবা আমার কোন গুণাহের কারণে আমাকে এ বিপদ দিয়েছেন। এখন আমার করণীয় কি?

১৫। আল্লাহর কাছে তারাই বেশী দামী, যারা নামাজ-রোজা, হজ্জ, যাকাত সহ সব ফরজ, ওয়াজিব, হালাল, হারাম, পর্দা পুশিদা ঠিক রেখে সুন্নত নফল কে বেশী দাম দেয়। আল্লাহর কাছে সমস্ত আমলের চাইতে বেশী দামী এবং মর্যাদা বৃদ্ধিকারী আমল হল আল্লাহর জিকির। আল হাদীস।

১৬। যারা অন্য জাতির,অন্য ধর্মের আচার অনুষ্ঠান ও বেশভুষা গ্রহণ ও অনুসরণ করে, তারা তাদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে। শুধু কি কাজে কর্মে অন্তর্ভুক্ত হবে, না কি পরিণতিও তাদের মত হবে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলই ভাল জানেন। আল্লাহর নবী বলেন, যে ভিন্ন জাতির অনুসরণ করে সে তাদের অন্তর্ভুক্ত। আল-হাদীস।

১৭। সুদ, ঘুষ, মদ, জুয়া, দুর্নীতি, মিথ্যা, প্রতারণা, ধোঁকাবাজী, গিবত, অপবাদ, নাচ, গান বাদ্যবাজনা, ভেজাল, ওজনে বেশকম, মুনাফাখোরী, গর্ব অহংকার, গিরার নিচে কাপড় পরা, দাড়ি শেইভ করা, ছেলে মেয়ের মত স্বর্ণ অলংকার পড়া ও মেহেদী দেয়া, ছেলে মেয়ের বেশ ও মেয়ে ছেলের বেশ ধারণ করা, ইসলাম বিরোধী কাজ করা এবং ইসলাম বিরোধী কাজে সাহায্য করা, এ সব অন্যায় নিজে করা বা অন্যায় কাজে অন্যকে সহযোগিতা করা, আল্লাহকে সুখ শান্তি উন্নতি রিজিকের মালিক হিসেবে গ্রহণ করা এবং আইনদাতা, শাসন কর্তা ও বিধান দাতা হিসেবে মান্য ও গ্রহণ না করা, হারাম, কবিরা গুণাহ ও শিরিক। এই রকম শিরক, হারাম ও কবিরা গুণায় যারা লিপ্ত থাকে তারা ফসেক।

পবিত্র রমজান মাসের উছিলায় আল্লাহ্ জান্নাত প্রত্যাশী সকল মুসলমান ভাইদেরকে সংশোধন হয়ে জাহান্নামের পথ ছেড়ে জান্নাতে পথে আসার হেদায়েত ও তাওফিক দান করুন। আমীন

Reviews (0)

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “প্রত্যেক মুসলমানদের যে সব বিষয় জানা ওয়াজিব”

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shopping cart
Facebook Twitter Instagram YouTube WhatsApp WhatsApp

Sign in

No account yet?